Topic: মেয়েদের ক্ষুধামন্দায় দায়ী ফেসবুক!

ভোগ ম্যাগাজিনের প্রধান সম্পাদক মেয়েদের ক্ষুধাহীনতার জন্য ফেসবুকসহ বেশকিছু সাইটকে দায়ী করেছেন। এমনকি এ সমস্ত সাইট বন্ধের জন্য তিনি অনলাইন পিটিশনও চালু করেছেন।

http://thumbs.dreamstime.com/thumblarge_167/1185112951sZmz5u.jpg

খবর টাইমস অফ ইন্ডিয়া-এর। সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং জায়ান্ট ফেসবুকের দিকেই আঙ্গুল নির্দেশ করে ভোগ ইতালি সংস্করণের সম্পাদক ফ্রাংকা সোজানি বলেছেন, এই সাইটটিই মেয়েদের মধ্যে খাদ্যভীতি তৈরি করছে। সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, সোজানি ইসরায়েল-এর ইউনিভার্সিটি অফ হাফিয়ার গবেষকদের সাম্প্রতিক একটি গবেষণার ফল উল্লেখ করে বলেন, ১২ থেকে ১৯ বছর বয়সী মেয়েদের বেশিরভাগই খাবারের প্রতি মনোযোগ ছেড়ে ফেসবুক নিয়ে বসে থাকে। এতে ক্ষুধামান্দ্য তৈরি হয় এবং শরীরে নেতিবাচক প্রভাব পড়ে। সংবাদমাধ্যমটি আরো জানিয়েছে, সোজানি তার  ব্লগে লিখেছেন, ওজন কমানোর জন্য ক্ষতিকর পরামর্শ দেয় এমন অনেক ওয়েবসাইটের খোঁজও তিনি পেয়েছেন। আর ক্ষুধামান্দ্য তৈরি করে এমন সাইটগুলো বন্ধে তিনি পিটিশনে অনলাইন স্বাক্ষর দেবার অনুরোধ করেছেন। জানা গেছে, অনলাইনে এখন পর্যন্ত ৬০০ জন এই পিটিশানে স্বাক্ষর করেছেন। পিটিশনে সাইন করার জন্য যেতে হবে-এখানে

সুত্র: এখানে



Re: মেয়েদের ক্ষুধামন্দায় দায়ী ফেসবুক!

কি করবে আর খেয়েদেয়ে কাজ না থাকলে যা হয়, প্রেমিক খুজতে একটু  চিকন-চাকন না হলে তো কেউ পছন্দ করবে না। বিয়ের পর শোধ করে নিবে । ৬ মাসে ডাবল।  laughing  laughing  laughing

মেডিকেল বই এর সমস্ত সংগ্রহ - এখানে দেখুন
Medical Guideline Books


Re: মেয়েদের ক্ষুধামন্দায় দায়ী ফেসবুক!

এখন তাহলে anorexia এর cause হিসেবে ফেসবুক এর নাম লিখলেও স্যাররা ভুল ধরবেন না। এ তো খুশির খবর!! rolling on the floor