Topic: 'গুগল ট্রান্সলেটর'

http://i1102.photobucket.com/albums/g450/shamim102/google.png

আল-আমিন কবির

গুগল ট্রান্সলেটর' ব্যবহার করে এত দিন বিশ্বের ৫৮টি ভাষা অন্য ভাষায় অনুবাদ করা গেলেও এ তালিকায় ছিল না আমাদের 'বাংলা'। গত সপ্তাহে গুগল ট্রান্সলেটরে যোগ হয়েছে বাংলাসহ আরো পাঁচটি ভাষা। তবে সব অনুবাদ নির্ভুল প্রদর্শন করতে পারছে না গুগল। এ ক্ষেত্রে আমাদেরও করণীয় আছে। গুগলে যুক্ত করতে হবে সঠিক অনুবাদ এবং শব্দভাণ্ডার।
সুচ থেকে শুরু করে হাতি, যেকোনো কিছুর তথ্য খুঁজতে প্রথম ভরসা 'গুগল'! শীর্ষ এই সার্চ ইঞ্জিন খোঁজাখুঁজি ছাড়াও আরো অনেক সেবাই দিচ্ছে। বিভিন্ন ভাষার লেখাকে অনুবাদ করার কাজেও গুগলের মুন্শিয়ানা রয়েছে। অনুবাদ করার জন্য অনলাইনে রয়েছে গুগল ট্রান্সলেটর (www.translate.google.com)। এখানে এখন বাংলা ভাষাকে অন্য ভাষায় অনুবাদ এবং অন্য ভাষা থেকে বাংলায় অনুবাদ করে পড়া যাচ্ছে বিভিন্ন তথ্য। তবে কারিগরি সীমাবদ্ধতা আর ইংরেজির সঙ্গে আমাদের বাক্য গঠনসংক্রান্ত ভিন্নতার কারণে এ ব্যবস্থা এখনো নির্ভুল নয়। এ সমস্যা এড়াতে আমাদের সবার স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ জরুরি, দরকার গঠনমূলক মতামত ও শব্দভাণ্ডার আরো উন্নত করা।

যেভাবে যুক্ত হলো বাংলা
২০০৬ সালের ২৮ এপ্রিল আরবি থেকে ইংরেজি ভাষায় অনুবাদের মাধ্যমে শুরু হয় গুগলের ট্রান্সলেশন সার্ভিস। তারপর যোগ হয় অন্যান্য ভাষা। ২১ জুন যুক্তরাষ্ট্র সময় সকাল ৯টা ২১ মিনিটে গুগলের গবেষক আশিস ভেনুগোপাল 'গুগল ট্রান্সলেশন' ব্লগে জানান, 'আজ থেকে ভারতীয় উপমহাদেশের আরো পাঁচটি ভাষা বাংলা, গুজরাটি, কানাড়া, তামিল এবং তেলুগু গুগলের ট্রান্সলেশন প্রোগ্রামে যুক্ত হলো! আপাতত আলফা সংস্করণ হিসেবে চালু হলো। মানোন্নয়ন হলে চূড়ান্ত সংস্করণ ছাড়া হবে।'

যেসব সুবিধা পাওয়া যাবে
এ সুবিধা যুক্ত হওয়ায় আমরা বাংলা থেকে যেমন অন্য ভাষায় লেখাকে অনুবাদ করে নিতে পারব, তেমনি অন্যান্য ভাষা থেকেও বাংলায় অনুবাদ করা যাবে। এ ক্ষেত্রে কেবল ইংরেজির নয়, গুগল ট্রান্সলেশন সেবায় থাকা আরো ৬২টি ভাষার সঙ্গে বাংলা ভাষার যোগাযোগ প্রক্রিয়া সহজ হলো। এখন থেকে অন্য ভাষার ওয়েবসাইট এবং তথ্য আমরা বাংলায় দেখতে পারব। বর্তমানে অনেক বাংলাদেশি সাইটকে বাংলা ও ইংরেজি আলাদা আলাদা সংস্করণ রাখতে হচ্ছে। গুগল বাংলা অনুবাদের মান ভালো হলে আলাদা সংস্করণ রাখার দরকার পড়বে না।

যেভাবে হবে অনুবাদ
বাংলাকে অন্য ভাষায় অনুবাদ করার জন্য প্রথমে গুগল ট্রান্সলেটরের হোমপেইজে (http://translate.google.com) যেতে হবে। এখন যে ভাষা থেকে বাংলায় অনুবাদ করতে চান সে ভাষাটি হোমপেইজের গুগল ট্রান্সলেটর লোগোর নিচে From লেখা বক্স থেকে নির্বাচন করে নিন। উদাহরণ হিসেবে আপনি ইংরেজি থেকে বাংলায় অনুবাদ করতে চান, তাহলে এ বক্স থেকে English নির্বাচন করুন। এবার To লেখা বক্স থেকে ‘Bengali’ নির্বাচন করুন। এবার যে লেখাটি অনুবাদ করতে চান সেটি নিচের বঙ্ েলিখুন এবং Translate বাটনটি ক্লিক করুন। পাশেই বাংলা অনুবাদটি চলে আসবে।

যেভাবে কাজ করে মেশিন ট্রান্সলেটর
কম্পিউটারের মাধ্যমে অনুবাদ 'রুল বেজড অ্যাপ্রোচ' এবং 'স্ট্যাটিসটিক্যাল অ্যাপ্রোচ' এ দুভাবে কাজ করে। ব্যাকরণ মতে, বাক্য অনুবাদের প্রক্রিয়া হলো 'রুল বেজড অ্যাপ্রোচ'। কম্পিউটারের মাধ্যমে এ পদ্ধতিতে সঠিক অনুবাদ করা কঠিন। যিনি সফটওয়্যারটি বা প্রোগ্রামটি তৈরি করবেন তার পক্ষে কোনোভাবেই সম্ভব নয় একটি ভাষার সব নিয়ম-কানুন এবং ব্যতিক্রম বাক্য গঠনপ্রক্রিয়াগুলো প্রোগ্রামটিতে ইনপুট দেওয়া। ৫০ বছর ধরে কাজ চললেও তাই মেশিনভিত্তিক ট্রান্সলেশনের কাজ খুব বেশি এগোয়নি। অনুবাদের আরেকটি ব্যতিক্রমী পদ্ধতি হচ্ছে স্ট্যাটিসটিক্যাল মেশিন ট্রান্সলেটর (SMT)। এ পদ্ধতির মাধ্যমে অনুবাদ প্রোগ্রাম তৈরির জন্য প্রয়োজন একটি ভাষার বিপুল পরিমাণ বাক্যসমেত বিপুল পরিমাণ 'প্যারালাল ডেটা'। এ প্যারালাল ডেটা দিয়ে প্রথমে স্ট্যাটিসটিক্যাল মেশিন ট্রান্সলেটরকে অনুবাদের নিয়ম ইনপুট দেওয়া হয়। এরপর একই ধরনের বাক্যগুলো এলে সে ক্ষেত্রে উক্ত ট্রান্সলেটর সঠিক বাক্যটি অনুবাদ করে বের করতে পারে।

সমস্যা যেখানে
আশিস ভেনুগোপাল তাঁর ব্লগে উল্লেখ করেছেন, ইংরেজি থেকে ভারতীয় উপমহাদেশের এ পাঁচটি ভাষার নানা দিক থেকে পার্থক্য রয়েছে। এগুলোতে সাবজেক্ট, ভার্ব এবং অবজেক্টের নিয়ম মেনে খুব কমই বাক্য গঠিত হয়। কিন্তু ইংরেজি বাক্য গঠনে অবশ্যই সাবজেক্ট, ভার্ব এবং অবজেক্ট সূত্র মানা হয়। দুটি ভাষার এ পার্থক্যের কারণে এর অনুবাদ প্রক্রিয়াটা একটু জটিল। শব্দার্থকে আমরা বিভিন্নভাবে প্রয়োগ করে দেখছি কোনটি সবচেয়ে উপযুক্ত হয়। এ ক্ষেত্রে ব্যবহারকারীরা যেসব শব্দ সাজেশন হিসেবে ব্যবহার করবেন সেগুলোই গুগল পরবর্তী সময়ে অনুবাদ ফিচারটির সঙ্গে যুক্ত করে দেবে। বর্তমানে প্রোগ্রামটিতে অধিকাংশ বাক্য সঠিকভাবে আসছে না। ইংরেজি থেকে সাবজেক্ট-ভার্ব-অবজেক্ট হিসেবে শাব্দিক অনুবাদে বাংলা বাক্য আসছে। বিশ্লেষকরা বলছেন, এতে আমাদের হতাশ হওয়ার কিছু নেই। আমাদের ক্ষুদ্র ক্ষদ্র অবদানেই আসবে বাংলা অনুবাদের চূড়ান্ত সংস্করণ।
গুগলও জানিয়েছে, 'আমাদের ভুলগুলো ব্যবহারকারীদের কাছ থেকে জানতে চাই এবং তাদের পরামর্শ অনুযায়ীই শুধরে নিতে চাই।'

এগিয়ে আসতে হবে আমাদেরই
বর্তমানে গুগলের অনুবাদ প্রোগ্রামটি যেভাবে আছে তাতে বেশির ভাগ বাক্যই সঠিকভাবে আসে না। অনুবাদ প্রোগ্রামটিকে নির্ভুল করার জন্য এখন গুগলে প্রচুর তথ্য ইনপুট করতে হবে। এ ক্ষেত্রে গুগলে অনুবাদ করে যেমন বিভিন্ন আর্টিকেল আপলোড করা যাবে তেমনি এক ভাষা থেকে অন্য ভাষায় কোনো আর্টিকেল অনুবাদ করার সময় সেটি ভুল মনে হলে অনলাইনেই সেটি ঠিক করে দেওয়া যাবে। ধরুন, আপনি ইংরেজি থেকে একটি বাক্য বাংলায় অনুবাদ করবেন, ‘My home is in Jessore’। অনুবাদ শেষে দেখলেন উত্তর আসছে 'আমার বাড়ি যশোর হয়'। এখন এটিকে অনলাইনেই ঠিক করে দেওয়ার মাধ্যমে অনুবাদ ফিচারটির উন্নয়ন করা সম্ভব। কোনো অনুবাদ ঠিক করার জন্য ভুলটির ওপর মাউস ক্লিক করলে কয়েকটি প্রতিশব্দ আসবে। সেখান থেকে সঠিকটি নির্বাচন করে Use বাটনটি ক্লিক করতে হবে। তবে যেসব ক্ষেত্রে সঠিক কোন প্রতিশব্দ পাওয়া না যাবে, সে ক্ষেত্রে ইউনিকোড বাংলায় সে শব্দটি লিখে Use বাটনটি ক্লিক করা যাবে। এ ছাড়া কোনো শব্দ যদি আগে না থেকে শেষে চলে যায় বা শেষের শব্দ আগে চলে আসে, তাহলে কিবোর্ড থেকে Shift চেপে ধরে ড্রাগ করে শব্দ আগ-পিছ করা যাবে।

টুলকিটের মাধ্যমে মানোন্নয়ন
অনুবাদের মানোন্নয়নের জন্য 'গুগল ট্রান্সলেটর টুলকিট' নামে গুগলের আলাদা একটি প্রোগ্রাম রয়েছে। টুলকিটটি ব্যবহার করার জন্য http://translate.google.com/toolkit ঠিকানায় যেতে হবে। এখান থেকে উইকিপিডিয়ার আর্টিকেল অনুবাদ করার পাশাপাশি ওয়ার্ড ফাইলের মাধ্যমেও যেকোনো ফাইল আপলোড করে সেটি অনুবাদ করা যাবে। বাংলা উইকিপিডিয়ার প্রশাসক বেলায়েত হোসেন জানান, যাঁরা গুগল টুলকিটের উন্নত অনুবাদের জন্য কাজ করবেন, তাঁদের জন্য উপযুক্ত অপশন হচ্ছে উইকিপিডিয়ার আর্টিকেল অনুবাদ। এতে উইকিপিডিয়ার বাংলা সংস্করণটি যেমন সমৃদ্ধ হবে, তেমনি গুগলের অনুবাদ ফিচারটিরও মানোন্নয়ন হবে। ট্রান্সলেশন টুলকিটে উইকিপিডিয়ার কোনো নিবন্ধ স্বয়ংক্রিয় যোগ করতে টুলকিট পেইজ থেকে Uploadবাটনে ক্লিক করুন। এতে নতুন একটি উইন্ডো বা ট্যাবে আরেকটি ওয়েব পেইজ খুলবে। Wikipedia article লিংকে ক্লিক করতে হবে। সেখানে URL লেখার স্থানে ইংরেজি বা অন্য কোনো উইকিপিডিয়ার আর্টিকেল লিংক বসাতে হবে। ইংরেজি ইউকিপিডিয়ার 'যশোর' আর্টিকেলটি অনুবাদ করার জন্য http://en.wikipedia.org/wiki/Jessore_District লিংকটি বঙ্টিতে বসাতে হবে। যে শিরোনামে আর্টিকেলটি অনুবাদ করতে চান এবার সে নামটি বসাতে হবে নিচের বক্সে। তারপর Upload for translation বাটনে ক্লিক করতে হবে। এবার নিবন্ধটি ট্রান্সলেশন টুলকিটে যুক্ত হয়ে তিনটি অংশ রয়েছে এমন একটি পাতা লোড হবে। পাতার বাঁ পাশে মূল লেখার অংশ, ডান পাশে অনুবাদের জন্য অংশ এবং নিচে অনুবাদের জন্য স্বয়ংক্রিয় অনুবাদ পরামর্শ বা ডিকশনারির শব্দ পরামর্শের অংশ। ডান পাশের অংশে একটি টেক্সট বক্স আসবে, যেখানে মূল লেখার একটি করে লাইন অনুবাদের হয়ে আসবে। এক লাইন অনুবাদ শেষ হলে Next চাপলে পরবর্তী লাইনটি অনুবাদের জন্য আসবে। Previous চেপে আগের লাইনে যাওয়া যাবে।
নিবন্ধটির অনুবাদ যথেষ্ট পরিমাণে শেষ হলে খুব সহজেই অনুবাদ কাজটি কোনো রকম কপি পেস্ট ছাড়াই সরাসরি উইকিপিডিয়াতে আপলোডও করা যাবে। এর জন্য অনুবাদ পাতায় Share বোতামে ক্লিক করে Publish to source page-এ ক্লিক করতে হবে। এ ছাড়া একইভাবে কম্পিউটার থেকে ডকুমেন্ট ফাইল আপলোড করেও অনুবাদ প্রোগ্রামে অবদান রাখা যাবে।

প্রয়োজন প্রবাসীদের সহযোগিতা
গুগল বাংলা অনুবাদে যাঁরা কাজ শুরু করেছেন তাঁদের একটি অনলাইন কমিউনিটি (www.facebook.com/googlebangla) তৈরি হয়েছে। এ কমিউনিটির প্রশাসক একরামুল হক শামীম বলেন, 'দেশ থেকে যাঁরা অবদান রাখছেন তাঁরা বেশির ভাগই হয়তো ইংরেজি থেকে বাংলা অথবা বাংলা থেকে ইংরেজি অনুবাদের জন্য কাজ করছেন। তবে অন্যান্য ভাষার সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ আরো সহজ করার জন্য সব ভাষা থেকেই বাংলা অনুবাদ উন্নয়নের কাজ করতে হবে। এ ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারেন প্রবাসী বাঙালিরা। যেমন_যিনি জাপানে থাকেন তিনি জাপানিজ ভাষা থেকে বাংলা ও বাংলা থেকে জাপানিজ ভাষার অনুবাদের মানোন্নয়নে কাজ করতে পারেন। অন্যদিকে যিনি জার্মানিতে থাকছেন তিনি পারবেন জার্মান ও বাংলা ভাষার যোগাযোগকে সংহত করতে।'

সুত্র

মেডিকেল বই এর সমস্ত সংগ্রহ - এখানে দেখুন
Medical Guideline Books